বাংলাদেশে প্রথম ট্যুরিজম ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল|রবিবার, জানুয়ারি ২০, ২০১৯
সাইটে আপনার অবস্থানঃ Home » এভিয়েশন » আগামি ১০ বছরে ১শ এয়ারক্রাপ্ট আনতে চায় ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ

আগামি ১০ বছরে ১শ এয়ারক্রাপ্ট আনতে চায় ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ 

Print Friendly, PDF & Email

cc
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক:
সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও সর্বোত্তম যাত্রীসেবার অঙ্গিকার নিয়ে আবারো অপারেশনে আসার চেষ্টা করছে দেশের পুঁজি বাজারে তালিকাভুক্ত একমাত্র এয়ারলাইন্স ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। আগামি ১০ বহরে ১শ টি এয়ারক্রাপ্ট আনতে চায় প্রতিষ্ঠানটি। এ লক্ষ্যে  কাজ চলছে। বর্তমানে বহরে থাকা ১১টি এয়ারক্রাপ্ট ছাড়াও নতুন আরো ৫টি নতুন এয়ারক্রাপ্ট বহরে যোগ দেবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় এবং সিভিল এভিয়েশনের পুর্নাঙ্গ সহযোগীতা পেলে ২০২৭ সালের মধ্যে এয়ারলাইন্সটি দক্ষিন এশিয়ার বৃহৎ এয়ারলাইন্সে রুপদান করার দাবি সংশ্লিষ্টদের।
তারা বলছেন, সহযোগীতা পেলে নতুন বিদেশী বিনিয়োগ ও ১ লাখ ৫২ হাজার শেয়ার হোল্ডারের অংশগ্রহনে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজকে কেবল বাংলাদেশে নয় সাউথ এশিয়ার শীর্ষ এয়ারলাইন্স কোম্পানীতে রুপান্তর সম্ভব।
ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের শেয়ার হোল্ডার ইরাদ খান। ১৫ টাকা দরে শেয়ার কিনেছেন। এখন নামমাত্র মুল্য। তবুও  বিক্রি করছেন না শেয়ারগুলো। তিনি বলেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় ও সিভিল এভিয়েশন আমাদের দেড় লাখ মানুষের দিকে তাকিয়ে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজকে অপারেশনে আসার ব্যবস্থা করে দেওয়া উচিৎ। ইরাদ আশাবাদী ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ শেয়ার বাজারকে আবারো চাঙ্গা করবে। দেড় লক্ষাধিক মানুষের জন্যে প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়ন হওয়া উচিৎ।

cসর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের প্রধান উদ্যোক্তা চেয়ারম্যান ও এমডি ক্যাপ্টেন তাসবিরুল আহমেদ চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নতুন মূলধনের উল্লেখযোগ্য অংশ আসবে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে। অর্থায়ন কোন সমস্যা নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ যাত্রার শুরুতেই প্রমান করেছিলো উন্নয়ন, সমন্নয় এবং সর্বোচ্চ যাত্রীসেবার মতো গুনাবলি থাকলে বিনিয়োগ আসবে এবং সরকার পর্যাপ্ত রেভিনিউ পাবে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যাত্রার আগে ২০০৪ সালে ১০ কোটির পেইড অাপ ক্যাপিটাল ২০০৬ সালে ৫০ কোটিতে এসে দাড়ায়। ২০০৭ সালের ১০ জুলাই মাত্র ১টি ড্যাস-৮ এয়ারক্রাপ্ট দিয়ে দেশের অভ্যন্তরীন রুটে ইউনাইটেড এয়ারের যাত্রা শুরু। পরের বছরই বহরে আরো একটি ড্যাস-৮ যুক্ত হয় বহরে এবং একই বছরে অভ্যন্তরীন ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ডানা মেলে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। প্রথম আন্তর্জাতিক রুটের অভিষেক ঘটে ঢাকা-কলকাতা রুট দিয়ে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় ২০০৯ সালে নতুন জেট বোয়িং এমডি-৮৩ যুক্ত হয় এয়ারলাইন্সটির বহরে। এবং ওই বছরই প্রথম কোন বেসরকারি বাংলাদেশী এয়ারলাইন্স হিসেবে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ ঢাক-লন্ডন রুটে যাতায়াত শুরু করে। ২০১০ সালে এয়ারবাস ৩১০-৩০০ইআর এর মাধ্যমে কোন বাংলাদেশী এয়ারলাইন্স হিসেবে প্রথম ঢাকা-লন্ডন রুটে ননস্টপ ফ্লাইট চালু করে। অগ্রগতি ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় এলারলাইন্সটির বহরে ১১টি অত্যাধুনিক এয়ারক্রাপ্ট যুক্ত হয়। ঢাকা-লন্ডন-ঢাকা, ঢাকা-দুবাই-ঢাকা, ঢাকা-মাস্কাট-ঢাকা, ঢাকা-দোহা-ঢাকা, ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা, ঢাকা-মদিনা-ঢাকা, ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা, ঢাকা-ব্যাংকক-ঢাকা, ঢাকা-সিঙ্গাপুর-ঢাকা, ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা, ঢাকা-কাঠমান্ডু-ঢাকা রুটে উন্নত যাত্রীসেবা দিয়েছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ।
ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ সূত্রে জানা গেছে, উড্ডয়ন উপযোগী উড়োজাহাজের সংকট ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে দেনদরবারের কারণে ২০১৫ সালে এক দফা বন্ধ হয়ে যায় ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ফ্লাইট। ২০১৬ সালের শুরুর দিকে পুনরায় ফ্লাইট চালু করলেও অল্প সময়ের ব্যবধানে তা আবারো বন্ধ হয়ে যায়। এর পর ফ্লাইট চালুর লক্ষ্যে কোম্পানিটি নতুন করে মূলধন সংগ্রহের চেষ্টা শুরু করে। বর্তমানে মুলধনের যোগান মিলেছে এবং নতুন এয়ারক্রাপ্ট আনার প্রক্রিয়া অব্যাহত।
উল্লেখ্য, ২০১০ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। বর্তমানে কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ৬৮৭ কোটি ২৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা। রিজার্ভে আছে ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা।
প্রয়োজনীয় মূলধন সংগ্রহ করে আবারো ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত একমাত্র এয়ারলাইনস প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেড। চলতি বছরের মাঝামাঝি নাগাদ ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে তারা। এ লক্ষ্যে বহরে নতুন উড়োজাহাজ সংগ্রহের পাশাপাশি বিদ্যমান উড়োজাহাজগুলোর  সচল করার প্রক্রিয়া চলছে।

ccc
এদিকে গত বছরের ডিসেম্বরে উড়োজাহাজ কেনার লক্ষ্যে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে বিদেশী ছয় কোম্পানির নামে ৩১২ কোটি ৮০ লাখ ৮৮ হাজার টাকার শেয়ার ইস্যুর অনুমতি পায় ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। ৫৯৪তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহঃ

শেয়ার করুন !!Share on FacebookTweet about this on TwitterShare on Google+Share on LinkedInShare on RedditBuffer this pageDigg thisShare on TumblrPin on PinterestShare on StumbleUponFlattr the authorEmail this to someone