বাংলাদেশে প্রথম ট্যুরিজম ভিত্তিক নিউজ পোর্টাল|রবিবার, জানুয়ারি ২০, ২০১৯
সাইটে আপনার অবস্থানঃ Home » খেলা » পিএসজির শিরোপা অক্ষুণ্ন

পিএসজির শিরোপা অক্ষুণ্ন 

imagespsg
Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাস্তিয়াকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে লীগ কাপের শিরোপা অক্ষুণ্ন রেখেছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। এর মাধ্যমে জ্লাটান ইব্রাহিমোভিচের দলের চলতি মৌসুমে চারটি শিরোপা জয়ের স্বপ্ন টিকে থাকলো।

imagespsg
১৯৯৫ সালের মতোই প্রথমার্ধ যেমন ছিল সুইডিশ তারকার দখলে, দ্বিতীয়ার্ধ ঠিক তেমনিভাবে নিজের করে নিয়েছিলেন এডিনসন কাভানি। আর এই দুই তারকার দুটি করে গোলেই লীগ ওয়ান চ্যাম্পিয়নদের শিরোপা নিশ্চিত হয়। একই সাথে দুর্দান্ত এই জয়ের মাধ্যমে বুধবার চ্যাম্পিয়নস লীগের কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা সফরে যাবার আগে সুস্পষ্ট ফেবারিট হিসেবেই মাঠে নামবে লরেন্ট ব্ল্যাঙ্কের দল। তাছাড়া আগামী মাসে ফ্রেঞ্চ কাপের ফাইনালে তাদের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে অক্সেরে।
গতকাল শিরোপা নিশ্চিত হবার পরে ক্লাবের সভাপাতি নাসির আল-খেলাফি ফ্রেঞ্চ-২ টেলিভিশনকে বলেছেন, ‘এটা আমাদের প্রথম শিরোপা, প্রথম লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। এখন আমরা দারুণ খুশী। আমরা বেশী খুশী এ জন্য যে, নতুন করে কোনো ইনজুরি দলে নেই। এখন আমরা বার্সার জন্য পুরোপুরি প্রস্তত।’
তবে বার্সেলোনার বিপক্ষে পিএসজি দলের তারকা স্ট্রাইকার ইব্রাহিমোভিচকে দলে পাচ্ছে না। চেলসির বিপক্ষে শেষ ১৬’র লড়াইয়ে হলুদ কার্ড পাবার কারণে ন্যু ক্যাম্পে দর্শক হয়ে ম্যাচ উপভোগ করতে হবে ইব্রাকে। কালকের ফাইনালে দলকে এগিয়ে দিতে সুইডিশ তারকার মাত্র ২১ মিনিট সময় লেগেছে। বাস্তিয়ার ডিফেন্ডার সেবাস্টিন স্কুইলাসি ডি বক্সের ভিতর এজেকুয়েল লাভেজ্জিকে ফেলে দিলে রেফারি পেনাল্টির নির্দেশ দেন। স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে দেন ইব্রা। বিরতির ঠিক আগ মুহূর্তে পাঁচ ম্যাচে নিজের দশম গোল পূর্ণ করেন সুইডিশ ফরোয়ার্ড। ম্যাথু পেবার্নেসের বাজে হেডের সুযোগে বল পেয়ে ৪১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন ইব্রাহিমোভিচ।
৮০ মিনিটে সার্জে অরিরের ক্রস থেকে অসাধারণ হেডের সাহায্যে দলের জয় নিশ্চিত করেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার কাভানি। ইনজুরি টাইমে বদলী খেলোয়াড় কাভানি মৌসুমের ২০তম গোলের মাধ্যমে দলের চতুর্থ গোল পূর্ণ করেন। এর মধ্য দিয়ে লীগ টেবিলের ১৪তম স্থানে থাকা বাস্তিয়ার বিপক্ষে জয়ের মাধ্যমে পঞ্চমবারের মতো লীগ কাপের শিরোপা জয় করেন পিএসজি। এর আগে ১৯৯৫, ১৯৯৮, ২০০৮ এবং ২০১৪ সালে এই শিরোপা জয় করেছিল ফ্রেঞ্চ লীগ চ্যাম্পিয়নরা।

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ সমূহঃ

শেয়ার করুন !!Share on FacebookTweet about this on TwitterShare on Google+Share on LinkedInShare on RedditBuffer this pageDigg thisShare on TumblrPin on PinterestShare on StumbleUponFlattr the authorEmail this to someone